Breaking News
Home / Study Care / সরকারী ঘরের আশায় মেম্বারকে টাকা দিয়ে সব হারালো হতদরিদ্ররা

সরকারী ঘরের আশায় মেম্বারকে টাকা দিয়ে সব হারালো হতদরিদ্ররা

অ’স’হায় ও ভূ’মিহী’নদের মা’ঝে প্রধা’নমন্ত্রী’র উপহা’র দেয়া স’রকারী ব’সত’ঘর নিয়ে বানি’জ্যে নে’মেছে ব’রিশাল সদর উপ’জেলা চন্দ্র’মোহন ইউ’নিয়নের ১নং ওয়া’র্ডের মেম্বার মোঃ নজরুল ইসলাম ফোরকান । স”রকারী ঘর পাইয়ে দেয়ার নামে ভূ’হীন’দের কাছ থেকে ২০ থেকে ২৫হা’জার টাকা উৎকোচ নেয়ার অভি’যোগ উঠেছে এই মেম্বা’রের’ বিরু’দ্ধে। এ’ভাবে প্রায় অনেকের কাছ থেকে টাকা নিলেও কিছু মানু’ষের ঘ’র দে’য়া হয়েছে। কিন্তু যা’দের ঘর দেয়া হয়’নি তারা এখন টা’কাও ফেরত পা’চ্ছে না।

বরং দিনের পর দিন ঘুরি’য়ে অসহা’য় মানু’ষদের আরো বিপ’দে ফেলছে’ন ইউপি মেম্বা’র ফোরকা’ন হাওলাদা’র। গণমা’ধ্যমের কাছে এমনই অভি’যোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা। তারা আরো বলেন, তিনি ও’য়ার্ড আওয়ামী’লীগের সভাপতি হওয়ায় কেউ কোন প্রতিবাদ করেও ‘সুবিধা পা’চ্ছে না। নিজ ক্ষ’মতা’র বলে ভয়’ভীতি দেখি’য়ে অনেক কাছ থেকে ঘর দেয়ার নামে টাকা নি’য়েছে। এছা’ড়া যারা বস’তঘর পাও’য়ার যোগ্য তাদের না দি’য়ে ‘সাম’র্থবা’নদের ঘর দেয়া হয়েছে। এদি’কে করো’না ম’হা’মারীর মধ্যে এক’দিকে ঘর নেই, অপ’রদি’কে নগদ সম্ব’লটুকু ঘরের জন্য মেম্বা’রকে দিয়ে বিপাকে রয়েছেন এসব পরিবার।

ভুক্তভোগী আনিছ জানান, প্রায় ২ বছর আগে ঘর পাওয়ার নামে ফোর’কান মে’ম্বারের কাছে ২০হাজার টাকা দেই। কিন্তু ঘর তো দেয়’নি বরং টাকা চাইতে গে’লে ভয়’ভীতি দেখায় এবং কাউ’কে না বলা’র জন্য বলে।

আ’রেক ভুক্ত’ভোগী বৃদ্ধ মো’খলে’ছ হাও’লাদার জানান, প্রায় দু’বছর আগে ফোরকান মে’ম্বারের কাছে ১০হা’জার টাকা দে’ই সরকা’রী ঘর পাবো বলে। ‘কিন্তু সে ঘর না দিয়ে বরং টাকা নিয়ে নয়’ছয় করে। ভাঙ্গা ঘরেই হয়’তো শেষ সম’য়’কাল কা’টাতে হবে। ১৫দিনের মধ্যে ঘর দেয়ার কথা বললেও ২বছর কেটে গেছে।

টাকা
অপ’দিকে জেলে’দে’র ভিজিএফ এর চাল নিয়ে রয়েছে অভি’যোগ। চাল পেতে হলে কার্ড করাতে হবে। আর কার্ড করাতে ইউপি মেম্বার’কে দি’তে হয় ৩ থেকে ৪হাজার টাকা । নয়’তো জেলেদের ভাগ্যে চাল জুটবে না। এমন’টাই অ’ভিযোগ তুলেছেন একাধিক ভু’ক্তভোগী অসহায়’ জেলে। এ ব্যাপারে ১নং ওয়া’র্ডের চরসিংহর’কাঠির মৎসজীবি জেলে সমিতির সভাপতি কুট্টি খাঁ জানান, জেলে’দের চাল পাওয়ার কার্ড করার জন্য অসহায় এক জেলের নাম দেই। কিন্তু ফোর’কান মেম্বার ৩ হাজার টা’কা দাবী করেন। পরে ‘টাকা দিতে দেরি হওয়ায় সে অন্য’জনের কাছ থেকে টাকা নিয়ে কার্ড দেয়।

এ ব্যাপারে ইউপি মেম্বার মোঃ নজরুল ইসলাম ফো’রকান এর কাছে অভিযো’গের বিষয় জান’তে চাইলে তি’নি বলেন আমা’র নামে মি’থ্যা অভি’যোগ আনা হচ্ছে। আমি কোন অসহায় পরিবা’রের কাছ থে’কে টাকা নেয়নি। যদি কেউ বলতে পারে জরি’মানা দিবো। এই বলে ফোন আসছে বলে লা’ইনটি কেটে দেন।

ইউপি চে’য়ারম্যান মোঃ আ’জিজ হাওলাদা’র জানান, আমার কাছে মেম্বা’রের বিরুদ্ধে কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি এবং ঘর পাওয়া’র কথা বলে কারো কাছে থে’কে টাকা নেয়া হয়েছে সে বিষয়ে আমি অ’বগত নই। যদি কা’রো কাছ থেকে টাকা নেয় সে অভিযোগ আসে আমি ব্যব’স্থা নিবো ।

About pressroom

Check Also

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৮০ হাজার শুন্যপদ,নিয়োগে জটিলতা

সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলো ৮০ হাজারের বেশি শিক্ষক পদ শুন্য । এসব পদে নিয়োগের জন্য কয়েকলাখ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by keepvid themefull earn money