আবারো শুরু তাপপ্রবাহ

সপ্তাহ বিরতির পর আবারো শুরু হয়ে গেল তাপপ্রবাহ। তাপমাত্রার এই গতি স্থিতিশীল না থেকে আগামী কয়েক দিন অব্যাহতভাবে বেড়ে যাওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। প্রথমদিকে অবশ্য বিচ্ছিন্নভাবে এই তাপ প্রবাহ শুরু হলো গতকাল। ঢাকা বিভাগের এক জেলা, রাজশাহী বিভাগের দুই জেলা, খুলনা বিভাগের এক জেলা, রংপুর বিভাগের এক জেলা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের দুই জেলায় গতকাল সোমবার থেকে মৃদু তাপপ্রবাহ শুরু হয়ে গেছে। এই সাত জেলায় আজো থাকবে উচ্চ তাপমাত্রা। আকাশে তেমন মেঘ না থাকায় সূর্যকিরণ কোনো বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে না। ফলে পুরো তাপমাত্রা মাটিতে পড়ে মাটিকে শুকিয়ে দিচ্ছে এবং একই সাথে বাতাসে যে আর্দ্রতা ছিল তাও কমে যাচ্ছে।

অন্য দিকে আজ মঙ্গলবার থেকে দেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা আরো বৃদ্ধি পাওয়ার ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে। ফলে দিনের বেলায় আরো কয়েক জেলায় তাপপ্রবাহ সম্প্রসারিত হতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুসারে, আজ মঙ্গলবারও টাঙ্গাইল, রাজশাহী, পাবনা, যশোর, নীলফামারী, রাঙ্গামাটি ও ফেনী জেলা উত্তপ্ত থাকবে। এই জেলাগুলোতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকতে পারে।

গতকাল সোমবার পাবনার ঈশ্বরদীতে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠেছে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া রাজশাহীতে ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, টাঙ্গাইলে ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যশোরে ৩৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ফেনীতে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, রাঙ্গামাটিতে ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, এমনকি সীতাকুণ্ডের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। নীলফামারী জেলার অপর আবহাওয়া স্টেশন ডিমলায় তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রি ছুই ছুই করছে।

তাপপ্রবাহ শুরু হওয়ার পেছনে কাজ করছে, বৃষ্টি কমে যাওয়া। যেটুকু আর্দ্রতা থাকছে তাতে যথেষ্ট পরিমাণ বৃষ্টি হচ্ছে না। যে আর্দ্রতা বাতাসে আসছে তা স্থানীয়ভাবে তৈরি এবং বৃষ্টির কারণে। বঙ্গোপসাগর থেকে আসছে না। আবার বৃষ্টির মধ্যেও যেটুকু তাপমাত্রা পাওয়া গেছে তাতে বৃষ্টি থেকে প্রাপ্ত ঠাণ্ডা কমিয়ে দিয়েছে। গতকাল সোমবার শুধুমাত্র পটুয়াখালী ও হাতিয়া ছাড়া দেশের আর কোথাও ছিটে-ফোঁটা বৃষ্টিও হয়নি। পটুয়াখালীতে ২০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে

আজ মঙ্গলবার দেশের ৬ বিভাগের ওপর দিয়ে অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তবে আবহাওয়া অফিস থেকে শিলাবৃষ্টির কোনো পূর্বাভাস নেই। গতকাল সোমবার অথবা আজ মঙ্গলবার যেটুকু তাপমাত্রা বেড়েছে, কাল বুধবার এর সাথে সার্বিকভাবে আরো ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বাড়বে। এই তাপমাত্রাটুকু বিরাজমান উচ্চ তাপমাত্রার সাথে যোগ হলে দেশের কিছু স্থানে মৃদু তাপপ্রবাহ বেড়ে গিয়ে মাঝারি মানের তাপপ্রবাহে উন্নীত হতে পারে। তবে এ উচ্চ তাপপ্রবাহ বেশি দিন স্থায়ী হওয়ার আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ ড. আবুল কালাম মল্লিক। তিনি বলেন, সামনে ৪/৫ দিন তাপপ্রবাহ থাকলেও এই সময়ের শেষে অর্থাৎ এখন থেকে ৫ দিন পর বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়ার পূর্বাভাস রয়েছে।

পাবনার ঈশ্বরদীতে গতকাল সর্বোচ্চ ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড হলেও গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে তেঁতুলিয়ায় ২১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীতে গতকাল সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে ৩৪ ও ২৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।