Breaking News
Home / Life Style / যে ধরনের খাবার হতাশা কাটাতে সাহায্য করবে

যে ধরনের খাবার হতাশা কাটাতে সাহায্য করবে

ম’হামারি করোনাভাইরাসের এই সময়ে মানুষ গৃহব’ন্দী। উঁকি দিচ্ছে মনে হ’তাশা বা ডি’প্রেশন। জীবনে আমরা যে ব্যর্থ তা নয়, সফল, স্বচ্ছন্দ জীবনেও ডিপ্রেশন দেখা দিতে পারে। বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের কথাই ধরুন। তিনি নিজে জানিয়েছেন, একটা সময়ে ডিপ্রেশনের জন্য ওষুধ খেতে হয়েছিল। অনেক পরিচিত মুখও হতাশায় ভো’গেন বলে শোনা যায়।

কখনো লেখাপড়া, কখনো কাজের চাপ, আবার কখনও প্রেমে ধোঁ’কা খাওয়া- পরিবেশের কারণে হতে পারে ডিপ্রেশন। তাই উত্তেজনা কমান, খান এমন কিছু খাবার যা এই সময়ে আপনাকে সাহায্য করবে। চলুন জেনে নিই সেই সব খাবারের নাম, যা হতাশা কাটাতে সাহায্য করবে।

হলুদ আর পাতিলেবুঃ এক গবেষণা বলছে, ক্যানসার ও অ্যালজাইমারের মত ডিপ্রেশন কাটিয়ে উঠতেও হলুদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এর মধ্যে অ্যান্টি ডিপ্রেস্যান্ট মৌল রয়েছে যা হতাশা কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করে।

ওটমিলঃ ওটমিলে থাকা কার্বোহাইড্রেট শরীরে সেরোটিন তৈরি করে। সেরোটিন মন ভাল করতে সাহায্য করে, শান্তি এনে দেয়। আখরোটঃ আমাদের মস্তিষ্কে ফ্যাটের পরিমাণ ৮০ শতাংশ। আখরোট মস্তিষ্কের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। এই ফল মন ভাল করে, এর মধ্যে থাকা ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যা’সিড মস্তিষ্কের কাজে সাহায্য করে।

ফলমূলঃ ফলে প্রচুর ভিটামিন। ফাইবার, আয়রন, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট- কী নেই! ডায়াবেটিসের রোগীদের রোজ ফল খাওয়া উচিত, এতে তাদের জিআই কম হয়। ফলে থাকা ভিটামিন ও মিনারেল শরীরের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। চকলেটঃ মানসিক চাপ কমাতে চকলেটের বিকল্প নেই। বিশেষ করে ডার্ক চকলেট। এর মধ্যে থাকা ফিনাইলেথাইলামাইন মস্তিষ্ককে শান্ত রাখে।

পেঁয়াজঃ পেঁয়াজের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত কোষের গঠনে সাহায্য করে। মন ভালো করতেও অবদান রাখে। কেশর বা শাকআলুঃ শাকআলু বহু মানসিক রোগ ও ডিসঅর্ডারের ওষুধ। ডায়েটে শাকআলু রাখুন, কমবে ডিপ্রেশন। ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েলঃ প্রাকৃতিক এসেনশিয়াল অয়েলও ডিপ্রেশন কাটাতে সাহায্য করে। যেমন ল্যাভেন্ডার। ৭-৮ ফোঁটা তেল মাথায় মালিশ করুন। মিষ্টি গন্ধে ডিপ্রেশন কেটে যাবে। হবে ভালো ঘুম।

সবুজ শাকসবজিঃ পালংশাক, মেথিশাক বেশি করে খান। কোষকে এরা রোগমুক্ত করে, মেরামত করে মস্তিষ্ককে। জিঙ্ক সমৃদ্ধ খাবারঃ জিঙ্ক মস্তিষ্কের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। র’ক্তে জিঙ্কের পরিমাণ কমে গেলে চিন্তা, মানসিক চাপ ও ডিপ্রেশন বেড়ে যায়। অতএব ডায়েটে রাখুন পালংশাক, অ্যাভোকাডো, মাংস, ডিম, কাবুলি চানা ও বাদামের মত জিঙ্ক সমৃদ্ধ খাবারদাবার।

About pressroom

Check Also

বাড়ির টবেই আলু চাষের সহজ ও কার্যকরী উপায়

বাজারে আলু কিনতে গিয়ে তো হাতে আগুন লাগার জোগাড়। কোথাও চল্লিশ টাকা, আবার কোথাও পঞ্চাশ। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by keepvid themefull earn money