পিএসসিতে বসেই বিসিএসের খাতা দেখবেন পরীক্ষক

বিসিএসে লিখিত পরীক্ষার খাতা দেখতে সময় কমিয়ে আনতে বিশেষ কৌশল চালু করতে যাচ্ছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। শুরুতে গণিত পরীক্ষার খাতা দেখতে বিশেষ কৌশলটি নিতে যাচ্ছে পিএসসি। সফল হলে আরও বড় পরিসরে পাইলট প্রকল্পটি চালু করা হবে।
পিএসসি সূত্র জানায়, কিছু পরীক্ষক খাতা নিয়ে সময়মতো দেন না। আবার অনেকে নানা ভুল করার কারণে তা তৃতীয় পরীক্ষকের কাছে যায়, যা সার্বিকভাবে লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের কার্যক্রমকে বিলম্বিত করে। পিএসসির তদন্ত দলের প্রতিবেদন অনুসারে, ৪১তম বিসিএসে ৩১৮ জন পরীক্ষক দায়িত্বে অবহেলা করেছিলেন। এতে ৪১তম বিসিএসের ফল দিতে দেরি হয়। ওই বিসিএসে ১৫ হাজার খাতা তৃতীয় পরীক্ষকের কাছে যায়। ৪৩তম বিসিএসে ১০ হাজার ও ৪৪তম বিসিএসে ৯ হাজারের কিছু বেশি খাতা তৃতীয় পরীক্ষকের কাছে গেছে, যা লিখিত পরীক্ষার ফল দেরিতে দেওয়ার অন্যতম কারণ। এই সময় ক্ষেপণ কমাতেই পিএসসি এবার গণিতের খাতা পিএসসিতে বসেই দেখানোর ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছে।

পিএসসি সূত্র জানায়, গত কয়েকটি বিসিএসে লিখিত পরীক্ষার খাতা দেখতে বেশি সময় লেগেছে। পরীক্ষকেরা খাতা দিতে দেরি করায় বারবার এই সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এতে লিখিত পরীক্ষার খাতার ফল পেতে দীর্ঘ সময় লাগছে। এর বাইরেও অনেক খাতা তৃতীয় পরীক্ষকের কাছে যাচ্ছে। তাতেও অনেক সময় লেগে যাচ্ছে। সব মিলে লিখিত পরীক্ষার ফল দিতে কখনো এক বছর বা কখনো এর বেশি সময়ও লেগে যাচ্ছে। এতে একেকটি বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশে দেরি হচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানে একটি কৌশল কাজে লাগানোর পরিকল্পনা করছে পিএসসি।

বিশেষ কৌশল সম্পর্কে জানতে চাইলে পিএসসির একাধিক সূত্র প্রথম আলোকে জানায়, গণিতের খাতা দেখতে সময় বেশি লাগে। এটিতে নানা সমস্যাও দেখা দেয়। এই সমস্যাগুলো বন্ধ করতে চায় পিএসসি। এ জন্য প্রথমে একটি পাইলট প্রজেক্ট চালু করা হবে। তাতে ১২০ জন পরীক্ষক এক দিনে পিএসসিতে উপস্থিত থাকবেন। সেদিনই একেবারে অনেক খাতা দেখা হবে। সেটি কোনো ছুটির দিনেও হতে পারে, যাতে পরীক্ষকেরা সহজেই অংশ নিতে পারেন। এই পরীক্ষকেরা একটি কক্ষে বসবেন। তাঁরা গণিতের খাতা দেখবেন। এই পরীক্ষকদের মধ্যে ৬ জন থাকবেন হেড বা প্রধান পরীক্ষক।

পরীক্ষকদের উত্তরপত্র দেখতে দেওয়া হবে। যে পরীক্ষক ১ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দেখবেন, তিনি কেবল ওই প্রশ্নের উত্তররই দেখবেন। তাঁর পাশের জন ২ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দেখবেন। এভাবে ক্রমান্বয়ে খাতা দেখা হবে। পরীক্ষকের খাতা হেড পরীক্ষকেরা যাচাই করবেন। কোনো সমস্যা তৈরি হলেও এই হেড পরীক্ষকেরা আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করবেন। খাতা বাসায় নিয়ে গেলে অনেক সময় তা সময়মতো দেওয়া হয় না। এটি বন্ধ করাও এই প্রকল্পের অন্যতম একটি উদ্দেশ্য।

পিএসসির চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন প্রথম আলোকে বলেন, পাইলট আকারে পিএসসিতে গণিতের খাতা দেখার কার্যক্রম নেওয়া হচ্ছে। পরীক্ষকেরা পিএসসিতে বসেই খাতা দেখবেন। সেখানেই দেখা শেষ করে বের হবেন। এটি সফল হলে বড় পরিসরে করা হবে।