কোনো বোর্ড পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাননি গুচ্ছে প্রথম হওয়া ইশিকা

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথমবর্ষের বাণিজ্য অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিট ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন কুমিল্লার ইশিকা জান্নাত। পরীক্ষায় তিনি ৮৬.৭৫ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। ইশিকা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন এবং তার ভর্তি পরীক্ষার রোল ৫২৮৯৩৪। তিনি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।

গুচ্ছে প্রথম হওয়া ইশিকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিটে উত্তীর্ণ হয়েছেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে ৮১তম ও চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে ৬৯তম হয়েছেন।ইশিকা জানান, জীবনে কোনো বোর্ড পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পাননি তবুও গুচ্ছে প্রথম হয়েছেন।

তিনি জানান, আমি খুব ভালো ছাত্রী ছিলাম না। মধ্যম সারির শিক্ষার্থী ছিলাম। কলেজে উঠার পর একটু পড়াশোনায় মনযোগ দেই আল্লাহর রহমতে প্রথম হয়েছি। আমার বড় আপু আমাকে পড়ালেখায় সবসময় সাহায্য করেছেন।

কুমিল্লাতেই জন্ম ও বেড়ে ওঠা তার। ২০১৩ সালে প্রাইমারি স্কুল সার্টিফিকেট (PSC) পরীক্ষায় ৪.২৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন, ২০১৯ জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (JSC) পরীক্ষায় পান ৪.৫০, ২০১৮ সালে ইশিকা বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল সেকেন্ডারি স্কুল সার্টিফিকেট (SSC) পরীক্ষায় ৪.৫৬ পেয়ে উত্তীর্ণ হয় এবং ২০২১ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক (HSC) পরীক্ষায় ৪.৯২ পেয়ে উত্তীর্ণ হন৷

তার সফলতার পেছনের গল্প বলে জানান, ভালো রেজাল্টের জন্য শুধু সময়মতো পড়াশোনা করেছি। কোচিং থেকে ভাইয়ারা যে পড়া দিত সেগুলো সময় মতো শেষ করতাম। তবে আমি সব সময় দিনের পড়া দিনে শেষ করেছি, ফেলে রাখিনি। কোচিং এর শিটগুলো ভালোভাবে ফলো করতাম।

কোথায় ভর্তি হবেন এ বিষয়ে বলেন, ভর্তির ব্যপারে বাসার সবার সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নিব। জাহাঙ্গীরনগরে ভাইভা দিয়েছি দেখা যাক কি হয়। গুচ্ছে আমার পছন্দ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা ‘সি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ হয়েছে। গত ২০ আগস্ট ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছভুক্ত ২২ বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘গ’ ইউনিটের পরীক্ষা শেষ হয়েছে। এই ইউনিটে ৪২ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন। প্রায় তিন হাজার ৭০টি আসন রয়েছে এই ইউনিটে। সেই হিসেবে প্রতি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন প্রায় ১৩ জন ভর্তিচ্ছু।

Leave a Comment