জাবির ইংরেজি বিভাগে পড়তে আবারও পরীক্ষা দিচ্ছেন ৩৯ বছর বয়সী শফিক

আগামীকাল (৩১ জুলাই) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় কলা ও মানবিক অনুষদ এবং বঙ্গবন্ধু তুলনামূলক সাহিত্য ও সংস্কৃতি ইনস্টিউটভুক্ত ‘সি’ ইউনিটে সেকেন্ড টাইম অংশগ্রহণ করবেন শেখ শফিক।

বর্তমানে পড়ছেন তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষে। জাবির ইংরেজি বিভাগে পড়ার স্বপ্ন গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ৩৯ বছর বয়সী শফিক। বর্তমানে পড়ছেন তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষে। স্বপ্ন পূরণে আগামীকাল নামবে জাবি ভর্তি যুদ্ধে।

শনিবার (৩০ জুলাই) এক সাক্ষাৎকারে এ তথ্য জানান শেখ শফিক।২০০৪ সালে এসএসসি পাস করার পর পারিবারিক টানাপোড়েনে বন্ধ হয়ে যায় তার পড়ালেখা। এরপর অদম্য ইচ্ছাশক্তি থাকলেও সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গির খপ্পরে পড়ে ভেস্তে যায় তার নিয়মিত পড়াশোনার স্বপ্ন। বর্তমানে মা-বাবাসহ ৭ সদস্যের পরিবারে রয়েছে তার দুই কন্যা সন্তানও।

শফিক জানান, ‘২০১৮ সালে কারিগরি শাখা থেকে ৪.৬৮ রেজাল্ট পেয়ে এসএসসি পাশ করেন। যা ছিল তার বিদ্যাপিঠের জন্য সর্বোচ্চ রেজাল্ট। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্নে নূরনবীর পরামর্শে সাধারণ শাখায় ড. এনামুল হক কলেজে মানবিক বিভাগে ভর্তি হন তিনি। সেখান থেকে ২০২০ সালে ৪.৮৩ পেয়ে উত্তীর্ণ হন তিনি।’

শফিক বলেন, ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে গতবার পরীক্ষা দিয়ে ‘সি’ ইউনিটে ৩৩৮ তম হয়েছি। এবারও পরীক্ষা দিচ্ছি শুধুমাত্র এখানে পড়তে চাই বলে। তবে পাশ করলে ইংরেজি সাবজেক্ট না পেলে রাবি ছেড়ে আসি কিনা সেটা সিউর না। যদিও এ বয়সে পড়লেখা শেষ করে সরকারি চাকরি পাওয়া যাবেনা আমি একটা পরিকল্পনা নিয়ে আগাচ্ছি। আমি ৪/৫ টা কোচিং সেন্টার চালিয়েছি। অনেকগুলো টিউশন করাতাম, এখনো করি। আমার কিছু শিক্ষার্থী এখনো জাবি ও রাবিতে পড়ে। ইংরেজি বিভাগে পড়তে চাওয়ার কারণ হচ্ছে বিদ্যাপীঠে ইংরেজির শিক্ষক হওয়ার আগ্রহ থেকে।’

ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ক্লাস সিক্স থেকে টেন পর্যন্ত প্রাইভেট পড়াতাম। তাই এই ক্লাসের সাবজেক্টগুলোর ওপর ভালো দখলে চলে আসছে। আর ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতির ৮০% শেষ। এখনও বিসিএসের ৫০% প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবো। এলাকায় অনেকেই পরীক্ষার প্রশ্ন আমার কাছে থেকে সমাধান করে নিতো। দেখা যেত ওই প্রশ্নগুলো ৬০ থেকে ৭০ শতাংশই পারতাম। দেখা যাক কি হয়! ইনশাআল্লাহ স্বপ্ন পূরণ হতেও পারে।’

Leave a Comment