জীবনের প্রথম চাকরি দেড় কোটি টাকার

বয়স মাত্র ২৩ বছর। নাম দেবর্ষি মৈত্র। পেয়েছেন গুগলে চাকরি। বেতন বছরে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদিয়ার কৃষ্ণনগরের ঘূর্ণির তরুণ দেবর্ষি মৈত্রকে কয়েক দিন আগে গুগলের পক্ষ থেকে ইমেল করে বিষয়টি জানানো হয়।তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক শেষ করেছেন। দেবর্ষি গুগলের লন্ডন অফিসে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজের সুযোগ পেয়েছেন।ঘূর্ণির মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান দেবর্ষি। সন্তানের এই সাফল্যে উচ্ছ্বসিত দেবর্ষির মা এবং বাবা। এলাকায় কৃতী ছাত্র হিসেবে পরিচিতি তার।

২০১৬ সালে কৃষ্ণনগর হাই স্কুল থেকে মাধ্যমিক ও ২০১৮ সালে কৃষ্ণনগর কলেজিয়েট স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে দেবর্ষি। তারপর জয়েন্ট পরীক্ষা দিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ভর্তি হন মেধাবী ছাত্র। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা শেষ হলেও রেজাল্ট এখনও হাতে পাননি। এরইমধ্যে অসাধ্য সাধন করে ফেলেছেন নদিয়ার কৃষ্ণনগরের ঘূর্ণি বাসিন্দা দেবর্ষি মৈত্র।

চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষার পর নিজেই গুগলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন দেবর্ষি। অনলাইন পরীক্ষায় কয়েক ধাপ এগোনোর পর চাকরি পাকা হয়ে যায় দেবর্ষির।ছেলের এই সাফল্যে মৈত্র পরিবারে খুশির হাওয়া। দেবর্ষির বাবা বাদল মৈত্র আগে গৃহশিক্ষকতা করতেন। তবে আর্থিক টানাপড়েনের জেরে গ্রিলের দোকানও খোলেন তিনি। ছেলে ছাড়াও এক মেয়েও রয়েছে তার।

বাদলের বক্তব্য, ‘ছোটবেলা থেকেও ছেলে এবং মেয়ের মধ্যে সাফল্যের বীজ আমি বুনে দিয়েছিলাম। এখন ওরা তার ফল পাচ্ছে। সন্তানদের স্বপ্ন দেখানো বাবা-মায়ের কাজ। বাকিটা ওরা নিজেই সামলেছে। তবে এত দূর ও যাবে এটা আশা করিনি।ছেলের সাফল্যে উচ্ছ্বসিত মা বকুলও। তার কথায়, সন্তানের সাফল্যে যে কোনও মা-ই খুশি হন। আমিও ভীষণ খুশি। তবে ও এত দূরে থাকবে ভেবে একটু কষ্ট হচ্ছে।

Leave a Comment