ভারতের কনিষ্ঠতম ধনকুবের শাশ্বত, মাত্র ২৩ বছর বয়সে হাজার কোটির মালিক

মাত্র ২৩ বছর বয়সে শাশ্বত নকরানি দেশের কনিষ্ঠতম ধনীর তকমা পেয়ে গেছেন। সম্প্রতি আইআইএফএল ওয়েল্থ হুরান ইন্ডিয়া’র ধনীর তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। খুব কম বয়সেই দেশের ধনীর তালিকায় ঠাঁই পেয়েছেন তার মতো আরও ১৩ জন। তাদের মধ্যেই কনিষ্ঠতম শাশ্বত।

তার বয়সী অন্যরা যখন কেউ স্নাতকোত্তরের বার্ষিক পরীক্ষার তোড়জোড় করছে, কেউ বা স্নাতকের ডিগ্রি হাতে নিয়ে মাত্রই কাজে ঢুকেছে কিংবা জীবনের লক্ষ্যই স্থির করে উঠতে পারেনি, সেই বয়সেই শাশ্বত নজির গড়ে ফেলেন লেনদেনের অ্যাপ বানিয়ে।

শাশ্বত নকরানি অনলাইন লেনদেনের অ্যাপ ভারতপে’র সহ প্রতিষ্ঠাতা। ফেসবুকের মালিক মার্ক জাকারবার্গ কিংবা মাইক্রোসফট এর প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস এর মতো ভারতের শাশ্বতও কলেজের পড়া শেষ করেননি। নিজের অ্যাপ বানাতে পরিবারের আপত্তি সত্ত্বেও কলেজ ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন তিনি।

২০১৫ সালে টেক্সটাইল প্রযুক্তি নিয়ে পড়াশোনার জন্য দিল্লি আইআইটিতে ভর্তি হয়েছিলেন শাশ্বত। কিন্তু কলেজের তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষার আগেই কলেজ ছেড়ে দেন।২০১৮ সালে আসনীর গ্রোভার এবং ভাবিক কোলাদিয়ার সঙ্গে যৌথ চেষ্টায় ভারতপে অ্যাপ বাজারে নিয়ে আসেন তিনি। প্রতিষ্ঠানের গ্রুপ প্রোডাক্ট প্রধান হন।মোট ১০০৭ জন উদ্যোক্তার উপর সমীক্ষা চালিয়েছিল আইআইএফএল ওয়েল্থ হুরান ইন্ডিয়া। তাদের মধ্যে কনিষ্ঠতম শাশ্বত।

শাশ্বত’র অ্যাপ ভারতপে ব্যবসায়ীদের কাছে এক সময় বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। এই ভারতপে অ্যাপস এর কিউআর কোড এর মাধ্যমেই পেটিএম, ফোনপে, গুগলপে, ভিমসহ ১৫০টিরও বেশি ইউপিআই মাধ্যমে লেনদেন করা যায়।এছাড়া আরও একটি রেকর্ড আছে শাশ্বতের ঝুলিতে। শাশ্বত এমন একজন বিত্তবান উদ্যোক্তা যিনি সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টায় এই জায়গায় পৌঁছেছেন।

সামাজিকমাধ্যমে সক্রিয় শাশ্বত ব্যক্তিগত জীবন আড়ালে রাখতেই পছন্দ করেন। সুস্বাদু খাবার খাওয়া এবং ঘুরে বেড়ানো তার জীবনের দুই গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ঘুরে বেড়ানোর সমস্ত ছবি সামাজিকমাধ্যমে অনুসারীদের সঙ্গে শেয়ার করেন তিনি। শাশ্বত ইতোমধ্যেই অন্তত এক হাজার কোটি টাকার মালিক।সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

About pressroom

Check Also

ধামইরহাটে দোতলা মাটির এসি বাড়ি দেখতে কৌতুহলী মানুষের ভীড়

নওগাঁর ধামইরহাটে মাটির দোতলা এসি বাড়ী দেখতে কৌতুহলী মানুষের ভীড় বেড়েই চলছে। উপজেলার আড়ানগর ইউনিয়নের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *