অর্থনীতিতে স্নাতক হয়েও জোটেনি চাকরি! দিন গুজরানে চায়ের দোকান চালাচ্ছেন এই তরুণী

দেশজুড়ে বেকারত্বের সংখ্যা কি হারে বৃদ্ধি পেয়েছে তার আর‌ও একবার প্রমাণ মিলল। করোনা পরিস্থিতি দেশের অর্থনীতিকে আর‌ও দুর্বল করে দিয়েছে! ক্রমে বেড়েছে কর্মহীনের সংখ্যা! আর যার ফলে হতাশা গ্রাস করেছে যুব সমাজকে। তবে একশ্রেনীর মানুষ এই হতাশাকে কাটিয়ে নতুন উদ্যমে, ইচ্ছেশক্তিকে সম্বল করে জীবনে ঘুরে দাঁড়ানোর শপথ নিয়েছেন।

আর এঁদের মধ্যেই একজন হলেন বিহারের প্রিয়াঙ্কা গুপ্তা। অর্থনীতির স্নাতক হয়েও বিগত দু’বছর চাকরি না পেয়ে সংসারের হাল ধরতে বিহারের একটি কলেজের সামনে চায়ের দোকান খুলে বসেন। ২০১৯ সালের অর্থনীতিতে স্নাতক হয়েও চাকরির জন্য বহু জায়গা ঘুরেও চাকরি জোটাতে পারেননি। কিন্তু তিনি অর্থ উপার্জন না করলে টাকা আসবে কোথা থেকে? আর তাই আর্থিকভাবে সবল হতে পাটনায় একটি মহিলা কলেজের সামনেই চায়ের দোকান খুলেছেন প্রিয়াঙ্কা।

প্রসঙ্গত, উল্লেখ্য, সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া একান্ত এক সাক্ষাৎকারে প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, “আমি ২০১৯ সালে আমার স্নাতক সম্পুর্ণ করি। কিন্তু বিগত ২ বছরে অনেক চেষ্টা করেও চাকরি জোটাতে পারিনি। আমার মতো অনেকেই সংসারে হাল ধরতে বিভিন্ন পেশাকে বেছে নিয়েছে তাহলে আমি কেন চায়ের দোকান চালাতে পারিনা?

তা এত কিছু থাকতে চায়ের দোকান খোলার ভাবনা কেন এলো মনে? এই প্রশ্নের উত্তরে বাংলার এম এ ইংলিশ চায়েওয়ালির মতো প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, এমবিএ চায়েওয়ালা ইন্ডিয়া ওরফে প্রফুল্ল বিল্লোরের গল্প শুনে অনুপ্রাণিত হয়েই তিনি চায়ের দোকান খোলার কথা ভাবেন। আর যেমন ভাবা তেমন কাজ। এরপর তিনি খুলে বসলেন একটি চায়ের দোকান। আর যার ফলে তিনি বর্তমানে ভাইরাল ‘চাওয়ালি’ নামে।

উল্লেখ্য, বাংলাতেও ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর টুকটুকি হাবড়া রেলস্টেশনের দু নম্বর প্ল্যাটফর্মে চায়ের দোকান খুলেছিলেন। নাম ‘এম এ ইংলিশ চাইওয়ালি’। ব্র্যান্ডটিকে বড় করে তোলাই স্বপ্ন এই তরুণীর। এই নামে তাঁর ইউটিউব চ্যানেল দ্রুত জনপ্রিয় হয়েছে।

Leave a Comment