Breaking News
Home / BCS Examination / স্বল্প সময়ে প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিবেন যেভাবে

স্বল্প সময়ে প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি নিবেন যেভাবে

প্রাইমারি স্কুলের সহকারী শিক্ষক পদের প্রিলি নিয়োগ পরীক্ষা মূলত ৮০ নম্বরের হয়ে থাকেঃ বাংলা (২০), ইংরেজি (২০), গণিত (২০), সাধারণ জ্ঞান (২০)। পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি কেমন হওয়া উচিত, সেটিই জানাচ্ছি।
বাংলা – ২০ নম্বর

⇨ ব্যাকরণঃ এই অংশ থেকে ১৮-১৯টা প্রশ্ন থাকে। মাধ্যমিক বাংলা ভাষার ব্যাকরণ বইটা পড়ে নিলে বেশ ভালোভাবে কাভার দেওয়া যাবে। শর্টকাট চাইলে নির্বাচিত বইসমূহের তথ্যসংকলন) বই থেকে মাধ্যমিক বাংলা ভাষার ব্যাকরণ অংশটি পড়ে নিতে পারেন।

⇨ সাহিত্যঃ এই অংশ থেকে ২-১টা প্রশ্ন আসে। এবার প্রেক্ষাপট কিছুটা ভিন্ন বিধায় একটু বেশি সতর্ক থাকা উচিত। কম প্রশ্ন আসলে তথাকথিত পিএসসির নির্বাচিত ১১জন (ঈশ্বরচন্দ্র, বঙ্কিম, মাইকেল,রবীন্দ্রনাথ ***,নজরুল***, মীর মোশাররফ, দীনবন্ধু, জসিমউদদীন, বেগম রোকেয়া, কায়কোবাদ, ফররুখ আহমদ) বেশি গুরুত্বপূর্ণ। শর্টকাট হিসেবে (নির্বাচিত বইসমূহের তথ্যসংকলন) বই থেকে লাল নীল দীপাবলি অংশ এবং উচ্চ মাধ্যমিক বাংলা অংশ থেকে উপরোক্ত ১১জন সম্পর্কিত তথ্যাবলি কম সময়ে পড়ে নিতে পারেন।

English – 20 Marks
⇨ Grammar : আমার মতে প্রতিটি অংশ কাভার করা উচিত। এরমধ্যে Parts of Speech, Appropriate Prepositions, Vocabulary*** (Spelling, Synonym, Antonym, Phrase & Idioms) অংশ থেকে প্রশ্ন বেশি আসে দেখা গেছে।

⇨ Literature : প্রশ্ন আসেই না বলতে গেলে এই অংশ থেকে। তবুও বিসিএস প্রিলিতে আসা প্রশ্নগুলো কাভার করে রাখা ভালো আমার মতে।
শর্টকাট হিসেবে ইংরেজির ২০ নম্বরের জন্য কারেন্ট এফেয়ার্স বিশেষ সংখ্যার ইংরেজি অংশটা কাভার করা যেতে পারে।
গণিত – ২০ নম্বর

⇨ পাটিগণিতঃ ভগ্নাংশ, ঐকিক নিয়ম, শতকরা, লাভ-ক্ষতি, মুনাফা-আসল ইত্যাদি অংশ বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
⇨ বীজগণিতঃ সূত্র প্রয়োগ করে মান নির্ণয়, সমীকরণ এই অংশগুলো থেকে সবচেয়ে বেশি প্রশ্ন আসে। তাই এগুলোতে বেশি জোর দিতে হবে।

⇨ জ্যামিতি ও পরিমিতিঃ ত্রিভুজ ও পরিমিতি থেকে বেশি প্রশ্ন আসে। তাই এগুলোতে অধিক জোর দিতে হবে।
যারা নিজেদের গণিতে দুর্বল মনে করেন, তারা প্রাইমারির বিগত বছরের প্রশ্নসমূহ এবং কারেন্ট এফেয়ার্সের গণিত অংশ কাভার করে ফেলুন।

সাধারণ জ্ঞান – ২০ নম্বর
⇨ বাংলাদেশ বিষয়াবলিঃ প্রাচীনকাল থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে নির্বাচিত তথ্য পড়ে গেলে ৬-৭টি প্রশ্ন কমন পাবেন। এছাড়াও সংবিধান ও বাংলাদেশের প্রশাসনিক ব্যবস্থাও গুরুত্বপূর্ণ। এই অংশের প্রস্তুতির ক্ষেত্রে(নির্বাচিত বইসমূহের তথ্যসংকলন) বই থেকে অসমাপ্ত আত্মজীবনী, মাধ্যমিক বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্ব সভ্যতা, ৮ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়, বাংলাদেশের সংবিধান – এই অংশগুলো পড়ে নিলেও ভালো কাভারেজ পাবেন।

⇨ আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিঃ জাতিসংঘ, সার্কসহ বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক সংগঠনগুলো নিয়ে বেশি প্রশ্ন আসে। সহজ তরিকা হলো কারেন্ট এফেয়ার্স বিশেষ সংখ্যার আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি অংশ পড়ে নেওয়া।
⇨ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিঃ ৩৫তম-৪০তম বিসিএস প্রিলি ও প্রাইমারির বিগত বছরের প্রশ্নগুলো কাভার করলে কমন আসার চান্স বেশি। ভালো প্রস্তুতির জন্য থেকে মাধ্যমিক বিজ্ঞান, ৮ম শ্রেণির বিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান (শুধু “ভৌতবিজ্ঞানের উন্নয়ন”

অধ্যায়), মাধ্যমিক তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ৮ম শ্রেণির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ভুগোল (নতুন সিলেবাস) – অংশগুলো পড়ে নিতে পারেন।
প্রস্তুতিকে যতোই শর্টকাট করুন না কেন যে প্রশ্নসমূহ অবশ্যই কাভার করবেনঃ

⇨ ২৭তম-৪০তম বিসিএস প্রিলির প্রশ্নসমূহ [ বাংলা, ইংরেজি, গণিত (বিন্যাস ও সমাবেশ দরকার নেই), বাংলাদেশ বিষয়াবলি, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি, সাধারণ বিজ্ঞান, কম্পিউটার ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ভূগোল]

About pressroom

Check Also

অবশেষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কৌশল জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

করোনার কারণে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘স্কুলগুলোর ক্লাস কখন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by keepvid themefull earn money