Breaking News
Home / BCS Examination / ব্রেকিং নিউজঃ বদলে যাচ্ছে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা পদ্ধতি

ব্রেকিং নিউজঃ বদলে যাচ্ছে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা পদ্ধতি

দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে আগামী আগস্ট মাসে প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই)। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশে বিলম্ব হবে। প্রায় ৪০ হাজার শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা পদ্ধতি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই নানা ধরনের মন্তব্য করছেন। দীর্ঘদিন পর নিয়োগ হওয়ায় লিখিত পরীক্ষায় (এমসিকিউ) নতুন ধরন আসবে কিনা- এমন শঙ্কাও প্রকাশ করেছেন অনেকে। তবে খোঁজ নিয়ে জানা

গেছে, বিশাল সংখ্যক নিয়োগের এই পরীক্ষায় কোন পরিবর্তন আসছে না। বরং আগের নিয়মেই সব ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বুধবার (১৫ জুলাই) প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার সময় ও পরীক্ষা পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চাইলে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন ডিপিই মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ। তিনি বলেন, আমরা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। সবকিছু এখন করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উপর নির্ভর করছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে নিয়োগ কার্যক্রম শুরু

করা সম্ভব হবে না। মো. ফসিউল্লাহ বলেন, আমরা পরীক্ষা পদ্ধতিতে কোন পরিবর্তন আনছি না। পরীক্ষার মানবন্টনেও কোন পরিবর্তন হবে না। আগের নিয়মেই লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। ডিপিই সূত্রে জানা গেছে, সারাদেশের ৬৫ হাজার ৬২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রায় ৪০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। এর মধ্যে ২৬ হাজার নিয়োগ দেওয়া হবে প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। আর ১৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে প্রাথমিক

বিদ্যালয়ে। ডিপিই জানায়, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে দুই ধাপে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে প্রার্থীদের মূল্যায়ন করা হয়। প্রথমে নেওয়া হয় এমসিকিউ বা বহুনির্বাচনী পরীক্ষা। এমসিকিউ পরীক্ষায় ৮০ নম্বরের প্রশ্ন আসে। বাংলা, ইংরেজি, গণিত এবং সাধারণ জ্ঞানের প্রতিটি বিষয় থেকে ২০টি করে মোট ৮০টি প্রশ্ন থাকে। প্রতিটি সঠিক উত্তরের জন্য ১ নম্বর যোগ হবে। প্রত্যেক ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে ০.২৫ নম্বর। পরীক্ষার জন্য বরাদ্দ সময় ১ ঘণ্টা ২০ মিনিট। এমসিকিউতে উত্তীর্ণদের ডাকা হয় মৌখিক পরীক্ষায়। এ ধাপে থাকে ২০ নম্বর। ভাইভায় টিকলে পরবর্তী যাচাই বাছাই শেষে চূড়ান্তভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়। তথ্যসূত্রঃ দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস

About pressroom

Check Also

অবশেষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কৌশল জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

করোনার কারণে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘স্কুলগুলোর ক্লাস কখন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by keepvid themefull earn money